রোজায় গরুর মাংসের কেজি ৪৫০ টাকা

0

আসন্ন রমজানে মাংসের দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি)। গত রমজানের বেঁধে দেয়া মাংসের দাম নিয়ে এই দাম নির্ধারণ করা হয়। এবার গত রমজানের তুলনায় সব ধরনের মাংসের দাম কমিয়ে নির্ধারণ করেছে ডিএসসিসি। সোমবার দুপুরে দক্ষিণ নগর ভবনে মাংস ব্যবসায়ী সমিতির সঙ্গে এক মতবিনিময় শেষে ঢাকা দক্ষিণ সিটির মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন এই দাম ঘোষণা করেন।

গত রমজান থেকে এ বছর ২৫ টাকা কমিয়ে দেশি গরুর মাংস প্রতি কেজি ৪৫০ টাকা এবং বোল্ডার বা বিদেশি গরুর মাংস ২০ টাকা কমিয়ে ৪২০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া খাসির মাংস প্রতি কেজি ৭২০ টাকা নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে।

অন্যদিকে, মহিষের মাংস প্রতি কেজি ২০ টাকা কমিয়ে ৪২০ টাকা এবং ভেড়া ও ছাগি মাংসের দামও ২০ টাকা কমিয়ে ৬০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। সুপার শপগুলোতেও একই দামে মাংস বিক্রির নির্দেশ দিয়েছে ডিএসসিসি।

মতবিনিময় সভায় অংশ নিয়ে বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব রবিউল আলম বলেন, রোজায় মাংসের দাম বাড়বে না। সিটি কর্পোরেশনের নির্ধারিত দামেই মাংস বিক্রি করবেন ব্যবসায়ীরা। আমরা স্বাস্থ্যসম্মত মাংস বিক্রি করতে চাই, সে জন্য অবশ্যই সিটি কর্পোরেশনের ভালো মানের পশু জবাইখানা দরকার। আধুনিক জবাই খানা দরকার। তাহলে আর অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে পশু জবাই হবে না। তিনি বলেন, কোথাও কোনো মাংস ব্যবসায়ী ওজনে কম দেন না, দেবেনও না।

গাবতলী গরুর হাটে অন্যায়ভাবে অতিরিক্ত খাজনা আদায়ের অভিযোগ করে তিনি বলেন, গরু ব্যবসায়ীদের বেঁধে রেখে নির্যাতন করা হয়। আমরা উত্তর সিটি কর্পোরেশনকে এ ব্যাপারে অন্তত এক হাজার অভিযোগপত্র দিয়েছি। কিন্তু কোনো ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। এ ছাড়া চাঁদাবাজদের হাত থেকে ব্যবসায়ীদের রক্ষা করার দাবি জানান তিনি। এসময় তিনি ডিএসসিসি এলাকায় একটি স্থায়ী কোরবানির হাট স্থাপনের দাবি জানান।

এদিকে ব্যবসায়ীরা নির্ধারিত দাম না মানলে তার বিরুদ্ধে আইনগত সিদ্ধান্ত নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়ে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, কোনো ব্যবসায়ী নির্ধারিত দাম না মানলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। মাংসের দাম যাতে সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকে সেজন্য ব্যবসায়দের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

মেয়র বলেন, এর আগে ব্যবসায়ীরা আমাকে আশ্বস্ত করেছেন গত রমজানের তুলনায় এ রমজানে পণ্যের দাম কম থাকবে। আপনারা মাংসের দাম জনগণের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখতেন। মাংসের গুণগত মান ঠিক রাখবেন এবং ওজনে কম দেবেন না।

মতবিনিময় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শেখ সালাহউদ্দিন, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমডোর মো. জাহিদ হোসেন, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা ইউসুফ আলী সরদার, বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব রবিউল আলম প্রমুখ ।

Share.

Leave A Reply