বরিশালে নির্মাণ হচ্ছে আন্তর্জাতিক মানের হোটেল

0

সচিবালয় প্রতিবেদক : বাংলার ভ্যানিস খ্যাত বরিশালে আন্তর্জাতিক মানের হোটেল এবং প্রশিক্ষণকেন্দ্র হতে যাচ্ছে।

কীর্তনখোলা নদীর তীরে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) প্রদত্ত এক একর জমিতে এ হোটেল এবং প্রশিক্ষণকেন্দ্র হবে।

সোমবার সচিবালয়ে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বিআইডব্লিউটিএ ও বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের (বিপিসি) মধ্যে এ সংক্রান্ত একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়। এতে বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমোডর এম মোজাম্মেল হক এবং বিপিসির চেয়ারম্যান আখতারুজজামান খান কবির নিজ নিজ পক্ষে সই করেন।

এ সময় বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব এস এম গোলাম ফারুক এবং নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. আবদুস সামাদ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে রাশেদ খান মেনন বলেন, এ স্থাপনা বরিশালবাসীর জন্য নববর্ষের উপহার। বরিশালসহ দক্ষিণাঞ্চলের পর্যটন, অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে এ উদ্যোগ মাইলফলক হয়ে থাকবে।

নৌপরিবহনমন্ত্রী শাহজাহান খান বলেন, বরিশালের পর্যটনে এ হোটেল এক নতুন মাত্রা যোগ করবে।

সভায় জানানো হয়, সমঝোতা স্মারক/চুক্তিনামা স্বাক্ষরের পর থেকে ‘লাইসেন্স প্রদত্ত সম্পত্তির’ মেয়াদ হবে ৩০ বছর। পর্যটন করপোরেশন নির্ধারিত লাইসেন্স ফি বাৎরিক ভিত্তিতে পরিশোধ করবে। প্রতি ১০ বছর পর লাইসেন্স ফি উভয় পক্ষের সম্মতিতে বৃদ্ধি পাবে। ৩০ বছর পর উভয় পক্ষের সম্মতিতে পুনরায় চুক্তিনামা সম্পাদিত হবে। তবে কোনো পক্ষ মেয়াদ শেষে পুনঃচুক্তিনামা সম্পাদনের আগ্রহী না হলে বর্ণিত সম্পত্তি প্রথম পক্ষের সম্পত্তি হিসেবে গণ্য হবে।

পর্যটন করপোরেশন বিআইডব্লিউটিএর অনুকূলে জমি ব্যবহার বাবদ ৫ লাখ টাকা ফেরতযোগ্য জামানত হিসাবে জমা দিয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃক জারিকৃত শুল্ক হার-২০১৬ অনুযায়ী বাৎসরিক লাইসেন্স ফি ভ্যাটসহ ২ লাখ ৩০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

বিআইডব্লিউটির ভূমি ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি/বিআইডব্লিউটিএর বিদ্যমান শুল্ক হার অনুযায়ী প্রতি বছর লাইসেন্স নবায়নের ক্ষেত্রে পূর্ববর্তী বছরের লাইসেন্স ফির ওপর ২ শতাংশ মূল্য বৃদ্ধি পাবে।

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১ জানুয়ারি ২০১৮/আসাদ/রফিক

Share.

Leave A Reply