নলছিটির নিখোঁজ মটরসাইকেল চালকের লাশ বাকেরগঞ্জে উদ্ধার

0

 নলছিটি প্রতিনিধি★★নলছিটির নিখোঁজ মোটরসাইকেল চালক রোমান হোসেনের গলাকাটা লাশ বাকেরগঞ্জের খয়রাবাদ নদীর খাসেরহাট চর থেকে উদ্ধার করেছে বাকেরগঞ্জ থানা পুলিশ। জনতা আমানুল্লাহ নামের এক হত্যাকারীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। জানা গেছে, গত ৩১ ডিসেম্বর নলছিটির পুরানবাজারের মাছ ব্যবসায়ী পৌর এলাকার খোজাখালী গ্রামের মো: বাদশার পুত্র ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল চালক রোমান হোসেন(২০) দুপুরের দিকে দুইজন যাত্রী নিয়ে নলছিটি থেকে দপদপিয়া যাওয়ার পর নিখোঁজ হয়। নিখোঁজ রোমানের পিতা-মাতা তার সন্ধান চালাতে থাকে। এরই মধ্যে আজ ১ জানুয়ারী বেলা ১১টার দিকে বাকেরগঞ্জের জোলাখালী এলাকা থেকে জনৈক মেম্বর নলছিটি পৌর এলাকার কাউন্সিলর নূরুল আলম স্বপনকে ফোনে রোমান হত্যাকান্ডের ঘটনা অবহিত করেন। এর প্রেক্ষিতে রোমানের পিতা-মাতা বাকেরগঞ্জ থানায় গিয়ে লাশ সনাক্ত করেন। বাকেরগঞ্জ থানার অফিসার ইন চার্জ মোঃ মাসুদুজ্জামান জানান, বাকেরগঞ্জের খয়রাবাদ নদীর খাসের হাট চর থেকে এসআই মোমিন এক যুবকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার ও জনতা কর্তৃক আটক আমানুল্লাহ নামের এক যুবককে থানায় নিয়ে আসে। আটক আমানুল্লাহ জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, তার বাড়ি বাকেরগঞ্জের চরাদী গ্রামে, তার পিতার নাম মাওলানা আলাউদ্দিন। তার পিতা সূর্য্যপাশা মাদ্রাসার শিক্ষক ও খোজাখালী মামুন তালুকদারের বাড়ির জামে মসজিদের ইমাম।তার পিতা পুরান বাজার স্কুল সংলগ্ন সাবেক কমিশনার মতিউর রহমানের বাড়িতে ভাড়া থাকে। সে ও তার বন্ধু নলছিটির সুবিদপুর গ্রামের যুবক নলছিটি ডিগ্রী কলেজের ছাত্র মো: রোহান( আগে হাটহাজারী মাদ্রাসার ছাত্র) দু’জনে মিলে রোমানকে জবাই করে হত্যা করে। এলাকাবাসী ধাওয়া করে তাকে আটক করলেও রোহান পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। এ ঘটনায় বাকেরগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

Share.

Leave A Reply